করোনা ভাইরাস: খাগড়াছড়িতে বাতিল বৈসাবি’র আয়োজন

0
67

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের কারণে এবার বৈসাবি আনুষ্ঠানিক কোন আয়োজন থাকছে না। করোনা ভাইরাসের কারণে নিষেধাজ্ঞা থাকায় এবার পাহাড়ে উদযাপিত হবে না বৈসাবি উৎসব। প্রতিবছর চৈত্রের মাঝামাঝি থেকে বৈসাবি নানা প্রস্ততি শুরু হলেও এবারের চিত্র ভিন্ন। পাহাড়ি পাড়াগুলোতে ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক উৎসবের কোন আয়োজন নেই। বাতিল করা হয়েছে পার্বত্য জেলা পরিষদের বর্ণাঢ্য র‌্যালি এবং মারমাদের পানি খেলা ।এই অবস্থায় ঘরোয়াভাবে পালিত হবে বৈসাবির আনুষ্ঠানিকতা।

পাহাড়ে প্রতিবছর বৈসু-সাংগ্রাই-বিজু বা বৈসাবি উদযাপনে বর্নিল আয়োজন থাকে। ত্রিপুরাদের বৈসু,মারমাদের সাংগ্রাই এবং চাকমাদের বিজু এর প্রস্তুতি এক মাস আগে থেকেই শুরু হয়।

নদীতে ফুল ভাসানো ও বণার্ঢ্য বর্ণিলসহ নানা আয়োজনে বৈসাবি বরণ করে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষেররা। চাকমা,মারমা ও ত্রিপুরা পল্লীগুলোতে শুরু হয় বিভিন্ন খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক আয়োজন। খাগড়াছড়ির চেঙ্গী,মাইনী  নদীর জলে দেবী গঙ্গার উদ্দেশ্যে ফুল ভাসানোর মাধ্যমে সূচিত হয় নতুন বছরকে বরণ করার মহা আয়োজন। কিন্ত এবার কিচ্ছু হচ্ছে না। পাহাড়ে প্রকৃতির নিয়মে বিজু ফুল ফুটলেও নেই কোন আয়োজন। বাতিল করা হয়েছে মারমাদের ঐতিহ্যবাহী পানি খেলা।

খাগড়াছড়ি মারমা যুব পরিষদ প্রতিবছর পানি খেলার আয়োজন করে । সংগঠনটির সভাপতি মংনু মারমা জানান,‘ আমরা চলতি মাসের ১৬ তারিখে এই বিষয়ে মিটিং করেছি । তবে সরকার নববর্ষের সব আয়োজন বাতিল করায়। আমরা এবার পানি খেলার আয়োজন করছি না। তবে প্রশাসনের অনুমতি পেলে ঐতিহ্য রক্ষায় সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে খুব ছোট পরিসরে এটি করা যেতে পারে। তবে ব প্রতিবছরের মতো আয়োজন স্থগিত করা হয়েছে। ’

এই অবস্থা ত্রিপুদের নববর্ষ অর্থ্যাৎ বৈসু বরণে প্রতিবছর নানা আয়োজন করে বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ। চলতি বছর এই বৈসু বরণ প্রস্তুতি কমিটির আহ্বয়ক করা হয় জেলা পরিষদ সদস্য পার্থ ত্রিপুরা জুয়েলকে। এই নিয়ে ফেব্রুয়ারির শুরুতে মিটিং করে বর্নাঢ্য আয়োজনের প্রস্তুতি নেয়া হয়। তবে করোর কারণে সব আয়োজন বাতিল করেছে বলে জানান পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল । তিনি আরো জানান,‘ গত বছরের চেয়ে চলতি বছর আরো বড় পরিসরে বর্ণিল আয়োজনে নতুন বছর বরণের প্রস্তুতি ছিল । কিন্তু করোনা কারণে তা সম্ভব হচ্ছে না। হয়তো ঘরোয়াভাবে এবার বৈসু পালন করতে হবে।

পাড়ায় পাড়ায় বৈসাবি বরণের নানা প্রস্তুতি থাকলেও তা এবার হচ্ছে না। সামাজিক দুরত্ব রাখতে গিয়ে অনেক আয়োজনই বাতিল করতে হয়েছে। প্রতিবছর বৈসাবীতে বড় আয়োজন করে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ। বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা,ঐতিহ্যবাহী েেখলাধুলা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বড় বাজেটের বিভিন্ন আয়োজন থাকলেও । এবার তার কিছু হচ্ছে না। খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী জানান ,‘ এবার আমরা বৈসাবি নিয়ে কোন আয়োজন করছি না। বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন আয়োজন বাতিল করা হয়েছে।

করোনর সংক্রমণ রোধে জনসমাগম এড়িয়ে সীমিত পরিসরে পালন অনুরোধ জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন নুপুর কান্তি দাশ‘‘বৈসাবী পাহাড়ের প্রাণের উৎসব। আমরা মানুষকে সচেতন করছি যাতে কাছাকাছি না আসে। সীমিত পরিসরে উৎসব উদযাপন করে।