মৃত্যুপুরী…. পলাশ বড়ুয়ার কবিতা

0
43

মৃত্যুপুরী

পলাশ বড়ুয়া

চারিদিকে লাশ আর লাশ
আর্তনাদ আর আর্তনাদ,
স্বজনহারা আপনজনের
চিৎকার, কান্না শুধু কান্না ৷

তবে কষ্ট খুব কষ্ট
আমার মৃত্যুর পর,
শুধু দূর থেকে দেখবে
একটু ছুঁয়েও দেখতে পারবে না ৷

বাড়ি, গাড়ি, কলকারখানা
সবই গড়েছি স্বজনদের জন্য,
যাবার বেলায় সবই শূন্য, শূন্য
নিথর দেহের পাশে কেউ আসেনা ৷

মামলার কারণে যে পুলিশ
আমায় পরিয়েছিল হাতকড়া,
তাঁরাই আমার আপনজন
জানাযার ইমাম নির্বাহী হাকিম ৷

যে চিকিৎসককে অশ্রদ্ধা করি
গালি দেই প্রতিনিয়ত বার বার,
সে চিকিৎসক মানুষ বাঁচাতে মরিয়া
সংক্রমিত হয়ে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ৷

মুসলিম ভাই আমার
আজ আমার লাশ বহণ করে,
তাঁরাই শ্মশানে নিয়ে যায়
সৎকার করে আমার ধর্মের রীতিতে৷

আজ সবাই কোয়ারেইন্টিনে
পুলিশ, সেনাবাহিনী, স্বেচ্ছাসেবক,
পরিবার পরিজন ছেড়ে মাঠে
আমরা বসে আছি এসি রুমে ৷

এ মৃত্যুপুরীর যাত্রী আমি তুমি
আজ বা কাল যেকোন দিন,
সংক্রমণ আমার আর তোমার মধ্যে
পৃথিবীটা আজ একটা মৃত্যুপুরী ৷

প্রাণ বাঁচাতে ঘরেই থাকো
ত্রাণ পৌঁছে যাচ্ছে ঘরে ঘরে,
যখন আমার মৃত্যু হবে
তখন পরিবার, বন্ধু যাবে সরে ৷

আজ কোন স্বার্থ, দ্বন্দ্ব নেই
কাজ করছি মনুষ্যত্ববোধের,
ধর্মের কোন ভেদাভেদ নেই
আজ পৃথিবীটা একটা মৃত্যুপুরী ৷